বীমা আইন লঙ্ঘন করায় ৩ কোম্পানিকে জরিমানা
১১ অক্টোবর, ২০১২ ১২:৩৬ অপরাহ্ণ

বীমা আইন লঙ্ঘন করে বাকিতে ব্যবসা ও অতিরিক্ত কমিশন দেওয়ার কারণে তিন প্রতিষ্ঠানকে মোট সাড়ে ৮ লাখ টাকা জরিমানা করেছে বীমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)।


জরিমানাকৃত তিন প্রতিষ্ঠান হলো- ফিনিক্স ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড, বাংলাদেশ কো-অপারেটিভ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড ও পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড।

জানা গেছে, গত ১৮ জুলাই বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের একটি পরিদর্শক দল ফিনিক্স ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের যশোর শাখা পরিদর্শন করে।

এসময় ফিনিক্স ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির মানি রশিদ এবং ব্যাংক স্টেটমেন্ট পরীক্ষা করে সম্পূর্ণ বাকিতে ব্যবসার প্রমাণ পাওয়া যায়।

এ কারণে বীমা আইন লঙ্ঘন হওয়ায় বুধবার আইডিআরএ’র কার্যালয়ে প্রতিষ্ঠানটিকে শুনানিতে ডাকা হয়। এসময় আইডিআরএয়ের সদস্য মো. নূরুল ইসলাম মোল্লা এবং ছাঈদ আহমেদ খান উপস্থিত ছিলেন।

শুনানিতে ওই প্রতিষ্ঠানের মুখ্য নির্বাহী জামিরুল ইসলাম, এএমডি ইনাম শাহীন, এজিএম শফিকুর রহমান এবং যশোর শাখা ব্যবস্থাপক এসকে আবদুল্লাহ আল মিরাজ উপস্থিত ছিলেন।

শুনানি শেষে ফিনিক্স ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের শাখা ব্যবস্থাপক এসকে আবদুল্লাহ আল মিরাজকে ব্যক্তিগতভাবে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে।

এদিকে নির্ধারিত হারের ১৫ শতাংশের চেয়ে অতিরিক্ত কমিশন প্রদানের জন্য বাংলাদেশ কো-অপারেটিভ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডকে জরিমনা করেছে আইডিআরএ।

জানা গেছে, গত ১৩ জুন আইডিআরএ কর্তৃপক্ষের একটি পরিদর্শন দল বাংলাদেশ কো-অপারেটিভ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের বিজয়নগরস্থ বুথ শাখা পরিদর্শনকালে নির্ধারিত হারের চেয়ে অতিরিক্ত হারে কমিশন প্রদানের প্রমাণ পাওয়া যায়।

বুধবার এ সংক্রান্ত শুনানিতে কোম্পানি সংশ্লিষ্টদের ডাকে আইডিআরএ।

শুনানি শেষে বাংলাদেশ কো-অপারেটিভ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের মুখ্য নির্বাহী নূরে আলম সিদ্দিকীকে ব্যক্তিগতভাবে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

আর পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের দিলকুশা শাখা পরিদর্শনকালে নির্ধারিত হারের চেয়ে কম হারে প্রিমিয়াম রেট আরোপের প্রমাণ পায় আইডিআরএ।

‌একই আইন লঙ্ঘনের জন্য প্রতিষ্ঠানটিকে বুধবার শুনানিতে ডাকা হয়।

শুনানি শেষে পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডকে বীমা আইনের ১৩০ ধারার খ উপধারা অনুযায়ী ৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। আর মুখ্য নির্বাহী (এমডি) কিউ এ এফ এম সিরাজুল ইসলামকে বীমা আইন ২০১০ এর ১৩৪ ধারায় ব্যক্তিগতভাবে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

আর দিলকুশা শাখার ব্রাঞ্চ ইনচার্জ সাব্বির আহমদ উল্লাহ সিনহাকে বীমা আইন ২০১০ এর ১৩৪ ধারায় ব্যক্তিগতভাবে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

পাঠকের মন্তব্য